শ্রেষ্ঠ ধর্ম ইসলাম

একজন মুসলিম এবং একজন হিন্দু ক্লাসমেট একসাথে রাস্তায় হাঁটছিলো।
পথিমধ্যে মুসলিম ছেলেটির পরিচিত একজন বন্ধুর সাথে দেখা হলো। ঠাট্টা স্বরুপ সেই বন্ধুকে একটা বকা দিয়ে সম্ভোধন করলো আর হিন্দু ছেলেটি সাধারণভাবেই কথা বললো।

তার কিছুক্ষণ পর পাড়ার এক মুরুব্বিকে দেখে সালাম দিলো মুসলিম ছেলেটি। এবং হিন্দু ছেলেটি আদাব বা নমস্কার জানালো।

তারপর তারা যারযার বাড়ি চলে গেলো।

উপরোক্ত ঘটনা থেকে কি বুঝলেন ? দাঁড়ান আমি বলছি মুসলিম ছেলেটি যে মুখে অন্যকে গালি দিলো সে মুখেই আরেকজনকে সালাম দিলো । অথচ ইসলাম সালাম কে সমর্থন করে কিন্তু গালিকে নয়।

উপরোক্ত ঘটনাটি কাল্পনিক কিন্তু বাস্তবসম্মত। এই ঘটনা এজন্য লিখলাম কারণ প্রায় সময় দেখি অন্যধর্মের মানুষদের কাছে আমাদের কিছু প্রাণপ্রিয় ভাইবোনেরা ইসলামকে ভুলভাবে জাহির করে। যার কারণে অন্যধর্মের লোকজন ইসলামকে খুব সহজেই ছোট করার সুযোগ পায়। ধর্ম বিতর্কিত কিংবা কোনো হুজুরের সাথে সংবাদকর্মী কিংবা কোনো এমপি মন্ত্রীর বাকবিতন্ডা লাগলে সেটা যখন নিউজ আকারে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে পোস্ট বা সংবাদ প্রচার করা হয় তখন অনলাইনে কমেন্টবক্সে কিংবা সরাসরি আমাদের মুসলিম ভাইয়েরা সেইসকল সংবাদকর্মী বা এমপি মন্ত্রীকে প্রচুর গালিগালাজ করেন। আর ঠিক তখনই অন্যধর্মের লোকজন ইসলাম ধর্মকে সরাসরি কাঠগড়ায় তুলেন এবং নানারকম বাজে শব্দ দ্বারা ইসলামকে তারা ছোট করেন।

আর এই বাজে কিছু বলার সুযোগটা কিন্তু ইসলাম ধর্মের হয়ে মুসলিমরাই করে দিচ্ছে। হয়তো কেউ সংবাদকর্মীকে, এমপি, মন্ত্রীকে অপছন্দ করার কারণে কিংবা কেউ সেই হুজুরকে অতিরিক্ত পছন্দ করার কারণে কিংবা ধর্মান্ধ হয়ে গালিগালাজ এবং বাজে কথা বলে থাকেন।

উদাহরণস্বরূপ লেখিকা তসলিমা নাসরিন প্রায়সময় ইসলাম ধর্মকে ছোট করে নানাধরনের লেখা লিখে থাকে। আর আমাদের ধর্মপ্রাণ ভাইবোনেরা তসলিমা নাসরিনের পোস্টে গিয়ে তসলিমার মা বোন চৌদ্দগুষ্টি উদ্ধার করে আসেন। তারপর তসলিমা কিংবা তার অনুসারীরা সেই সকল গালাগালির কমেন্ট স্ক্রিনশট দিয়ে পোস্ট করে আবার ইসলামকে ছোট করে।

তসলিমা ও তার অনুসারীরা আপনার আমার ইসলামকে গালি দিলে ইসলাম ছোট হয় না। কারণ আপনার আমার ভালো করেই জানা উচিত যে, ইসলাম শ্রেষ্ঠ ধর্ম আর সে একজন নাস্তিক। তার দ্বারা যে কাউকে ছোট করা, যেকোনো নোংরা কথা বলা কিংবা কাজ করা সম্ভব।
কিন্তু আপনিতো ইসলাম ধর্মের অনুসারী। আপনিও যদি তার মতোন গালি দেন, নোংরা ভাষায় তাকে জবাব দেন তাহলে তার আর আপনার তফাৎ থাকলো কোথায় ?

ইসলাম কখনোই কাউকে ছোট করতে শেখায়না, ইসলাম তর্ক-বিতর্ক, সংঘাত শেখায়না, ইসলাম লোভ, তেলমারা, চাটুকারিতা শিক্ষা দেয় না। ইসলাম কখনো অন্যের ধর্মকে ছোট করাও শেখায়না। বিদায় হজ্জ্বের ভাষণে রাসূল (সাঃ) গোটা মানবজাতিকে ইসলামের শান্তির পতাকাতলে এনেছিলেন। সবাইকে ক্ষমা করেছিলেন যারা তাঁকে আঘাত করেছিলো। তাহলে আমরা কেন অন্যের নোংরা কথায় নোংরাভাবে জবাব দিবো ?
ইসলাম আমাদের শালীন হতে শেখায়, শান্তিপ্রিয় হতে শেখায়।

ইসলাম শান্তির ধর্ম। অন্যকে তেলমর্দন, অন্যদলের বিরুদ্ধে বলা, অন্যের জন্য চাটুকারিতা করতে গিয়ে ইসলাম কে বারবার প্রশ্নের সম্মুখীন করাটা গুরুতর পাপ বলে মনে করি। আল্লাহ আমাদের সঠিক বুঝ দান করুন। সবাইকে হেদায়েত দান করুক।

“শ্রেষ্ঠ ধর্ম ইসলাম”
লেখা: মোঃ আমজাদ হোসাইন

Leave a Comment