শ্লীলতা হানীর সময় স্কুলছাত্রীর দায়ের কোপে গুরুতর আহত যুবক

স্কুলছাত্রীকে শ্লীলতা হানী করার চেষ্টাকালে ওই ছাত্রীর দায়ের কোপো গুরুতর আহত এক যুবক।
পিরোজপুর জেলার নাজিরপুরে এই ঘটনা ঘটেছে। শ্লীলতা হানীর চেষ্টাকারী ওই যুবকের নাম মো. সিরাজুল ইসলাম (২৫)। গতকাল বুধবার রাতে উপজেলার সদর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা গেছে দায়ের কোপে আহত ওই যুবক উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাতকাছিমা গ্রামের আশ্রাফ আলীর ছেলে। সে পেশায় একজন কাপড় ব্যবসায়ী। উপজেলা সদরের চরগলিতে তার কাপড়ের দোকান রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত ৮টার দিকে নিজ তাদের বসত ঘরের দোতালায় বসে বই পড়ছিলো ওই স্কুলছাত্রী। সিরাজুল ইসলাম নামের ওই যুবক আচমকা তাদের ঘরে ঢুকে পরে এবং ওই ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। সিরাজুলের হাত থেকে রক্ষা পেতে ওই ছাত্রী চিৎকার-চেঁচামেচি করলেও তাকে ছাড়ে না ওই যুবক।

তাই উপায়ন্তর না দেখে নিজেকে বাঁচাতে কক্ষে থাকা দা দিয়ে ওই যুবকের মাথায় কোপ দিয়ে নিজেকে রক্ষা করে। পরে জানতে পেরে স্থানীয়রা এগিয়ে আসেন। তারা ওই যুবককে মারধর করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।
 
জানতে চাইলে নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. মোস্তফা কায়সার জানান, আহত ওই যুবকের মাথায় ধারালো অস্ত্রেী আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে । তার মাথায় পাঁচটি সেলাই দেয়া হয়েছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে চরগলি বাজার সমিতির সভাপতি মো. পান্নু ফরাজী বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। ওই ছাত্রীর বাবার তাদের মান-ইজ্জতের কথা ভেবে কোনো মামলা করতে রাজী হয়নি।

তবে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি সিরাজুলকে আর ওই বাজারে ব্যবসা করতে দেয়া হবে না। তবে তার (যুবক) পরিবার থেকে দাবি করা হচ্ছে ওই যুবক নাকি কিছুটা মানসিক প্রতিবন্ধী (পাগল)।

এ বিষয়ে নাজিরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জাকারিয়া হোসেন জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে এ বিষয়ে কোনো মামলা দায়ের বা অভিযোগ পাইনি । অভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

2 thoughts on “শ্লীলতা হানীর সময় স্কুলছাত্রীর দায়ের কোপে গুরুতর আহত যুবক”

  1. Hi there, after reading this remarkable post, I am too delighted to share my knowledge here with friends. Codee Rock Valentijn

    Reply

Leave a Comment